শুক্রবার, ৩১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

স্মরণ: নায়ক মান্না’র ১৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

তিনি ছিলেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় নায়ক

দেশীয় বাণিজ্যিক ছবি’র দাপুটে অভিনেতা নায়ক মান্না’র ১৪তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০০৮ খ্রিষ্টাব্দের ১৭ ফেব্রুয়ারি, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন মান্না। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল মাত্র ৪৪ বছর। বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ ও তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করি।

১৯৬৪ খ্রিষ্টাব্দের ১৪ এপ্রিল, টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গায় জন্মগ্রহণ করেন নায়ক মান্না (সৈয়দ মোহাম্মদ আসলাম তালুকদার)।
উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় পাস করে ঢাকা কলেজে স্নাতকে ভর্তি হয়েছিলেন। ১৯৮৪ খ্রিষ্টাব্দে তিনি এফডিসির নতুন মুখের সন্ধান কার্যক্রমের মাধ্যমে বাংলা চলচ্চিত্রে আসেন। তাঁর অভিনীত প্রথম মুক্তি প্রাপ্ত ছবি ‘পাগলী’।

প্রায় তিনশত ছবিতে অভিনয় করেছেন নায়ক মান্না। অনেক ধৈর্য-পরিশ্রম-সংগ্রাম ও অধ্যবশায়ে হয়ে উঠেছিলেন ঢাকাই সিনেমার টপ হিরো’দের একজন। নায়ক হিসেবে নিজেকে নিয়ে গিয়েছিলেন সাফল্যের অনন্য উচ্চতায়, জনপ্রিয়তার শীর্ষে। দর্শকদের হলমুখী করতে নায়ক মান্নার ছিলো অনেক অবদান।

নায়ক হিসেবে তিনি যেমন জনপ্রিয় ছিলেন, তেমনই তাঁর প্রযোজিত ছিবগুলোও পেয়েছে জনপ্রিয়তা। তাঁর প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘কৃতাঞ্জলি চলচিত্র’ নির্মিত হয়- লুটতরাজ, লাল বাদশা, আব্বাজান, স্বামী স্ত্রীর যুদ্ধ, দুই বধূ এক স্বামী, মনের সাথে যুদ্ধ, মান্না ভাই, পিতা মাতার আমানত প্রভৃতি।

একজন দক্ষ সংগঠকও ছিলেন তিনি। মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

অভিনয়ে স্বীকৃতি স্বরূপ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, বাচসাস পুরস্কার, মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার ও ডিসিআরইউ শোবিজ অ্যাওয়ার্ড সহ অসংখ্য পুরষ্কার পেয়েছেন।

চিত্রজগত/ঢালিউড

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়