শুক্রবার, ৩১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

সালতামামি: ২০২১ সালে যাদের হারিয়েছে শোবিজ

দেশের শোবিজ জগত থেকে ২০২১ সালে অনেক তারকা প্রয়াত হয়েছেন। তবে প্রয়াত হলেও কর্মের মাধ্যমে তারা বেচে থাকবেন মানুষের হৃদয়ে। এদের মধ্যে রয়েছেন কবরী, ওয়াসিম, এটিএম শামসুজ্জামান, মিতা হক, ড. ইনামুল হক, ফকির আলমগীরসহ অনেকেই। চলতি বছর হারিয়ে যাওয়া তারকাদের নিয়েই এ আয়োজন-

এটিএম শামসুজ্জামান [১৯৪১-২০২১]
গুণী অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান চলতি বছর ২০ ফেব্রুয়ারি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। রাজধানীর সূত্রাপুরের নিজ বাসভবনে মারা যান তিনি। এ অভিনেতা স্ত্রী, তিন মেয়ে ও দুই ছেলে রেখে গেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮০ বছর। বেশ কয়েক বছর ধরে নানান শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন এটিএম শামসুজ্জামান। সিনেমার পাশাপাশি অসংখ্য নাটক ও ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন তিনি। পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, একুশে পদকসহ অসংখ্য সম্মাননা পেয়েছেন এটিএম শামসুজ্জামান।

সারাহ বেগম কবরী [১৯৫০-২০২১]
কিংবদন্তি অভিনেত্রী সারাহ বেগম কবরী মারা যান ১৭ এপ্রিল। রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। ৫ এপ্রিল তার করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর আসে। ওই রাতে হাসপাতালে নেওয়া হয় তাকে। অবস্থার অবনতি হলে ৮ এপ্রিল আইসিইউতে নেয়া হয় কবরীকে। লাইফ সাপোর্ট দেয়া হয় ১৫ এপ্রিল। তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি। সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে যান মিষ্টি মেয়েখ্যাত অভিনেত্রী ও রাজনীতিবিদ কবরী।

ফকির আলমগীর [১৯৫০-২০২১]
গণসংগীত শিল্পী ফকির আলমগীর চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ২৩ জুলাই। করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি। ১৪ জুলাই তার করোনা পজিটিভ আসে, ১৫ জুলাই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ১৮ জুলাই থেকে ভেন্টিলেশনে ছিলেন এ শিল্পী। ২৩ জুলাই রাতে স্ট্রোক করেন। এরপর তাকে মৃত ঘোষণা করেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

ড. ইনামুল হক [১৯৪৩-২০২১]
একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য অভিনেতা, নাট্যকার, নির্দেশক ড. ইনামুল হক নিজ বাসায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ১১ অক্টোবর। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর। তিনি বার্থক্যজনিত বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন।

ইন্দ্রমোহন রাজবংশী [১৯৪৬-২০২১]
গত ৭ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন একুশে পদকপ্রাপ্ত সংগীতশিল্পী ও স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠযোদ্ধা ইন্দ্রমোহন রাজবংশী।

জানে আলম [১৯৫৭-২০২১]
সংগীতশিল্পী জানে আলম মারা গেছেন ২ মার্চ। করোনামুক্ত হলেও তিনি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। সেখানেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন জানে আলম।

শাহীন আলম [১৯৬২-২০২১]
বাংলা সিনেমার এক সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা শাহীন আলম। রাজধানীর একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ৮ মার্চ। তিনি কিডনির বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন।

ফরিদ আহমেদ [১৯৬০-২০২১]
করোনা আক্রান্ত হয়ে ১৩ এপ্রিলে সকালে মারা যান জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত সংগীত পরিচালক ফরিদ আহমেদ। ২০ মার্চ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। পুনরায় করোনা আক্রান্ত হন ২৫ মার্চ। সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় ১১ এপ্রিল ফরিদ আহমেদকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। সেখান থেকেই না ফেরার দেশে চলে পাড়ি জমান।

চিত্রনায়ক ওয়াসিম [১৯৪৭-২০২১]
ঢাকাই সিনেমার আলোচিত অভিনেতা ওয়াসিম মারা গেছেন ৭৪ বছর বয়সে। ১৮ এপ্রিল দিবাগত রাতে রাজধানীর একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। এ অভিনেতা বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন। বেশ কিছুদিন বাসায় শয্যাশয়ীও ছিলেন।

এস এম মহসীন [১৯৪৮-২০২১]
একুশে পদকপ্রাপ্ত অভিনেতা এস এম মহসীন প্রাণ হারিয়েছে করোনায় আক্রান্ত হয়ে। ২০২১ সালের ১৮ এপ্রিল সকালে রাজধানীর একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তার অভিনীত শেষ সিনেমা ‘অন্তরাত্মা’। এ সিনেমার শুটিং শেষ করে ২ এপ্রিল ঢাকায় ফিরেছিলেন এস এম মহসীন।

মাহমুদ সাজ্জাদ [১৯৪৮-২০২১]
চলতি বছরের ২৪ অক্টোবর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান অভিনেতা মাহমুদ সাজ্জাদ। তিনি করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। ১ সেপ্টেম্বর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে আইসিইউতে নেয়া হয়। করোনা মুক্ত হলেও শারীরিক জটিলতায় না ফেরার দেশে চলে যান এ অভিনেতা।

মিতা হক [১৯৬২-২০২১]
গত ১১ এপ্রিল মারা যান প্রখ্যাত রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হক। তিনি গত পাঁচ বছর ধরে কিডনি রোগেও ভুগছিলেন। নিয়মিত ডায়ালাইসিস নিয়ে ভালোও ছিলেন তিনি। কিন্তু মার্চে করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় তিনি মানসিক ও শারীরিকভাবে দুর্বল হয়ে পড়েন।

আশা চৌধুরী
ছোটপর্দার অভিনেত্রী আশা চৌধুরী না ফেরার দেশে চলে গেছেন ৪ জানুয়ারি। সড়ক দূর্ঘটনায় মৃত্যু হয় তার। ৪ জানুয়ারি মধ্যরাতে মিরপুরের দারুস সালাম এলাকায় ট্রাক চাপায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন তিনি। আশা বাংলাদেশ টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত শিল্পী ছিলেন। নাটকে নিয়মিত অভিনয় করতেন।

শামীম ভিস্তি [১৯৬৬-২০২১]
টেলিভিশন নাটক, চলচ্চিত্র ও মঞ্চ অভিনেতা শামীম ভিস্তি মারা যান চলতি বছরের ২২ অক্টোবর। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৫ বছর।

কায়েস চৌধুরী [১৯৫৭-২০২১]
২১ অক্টোরব ৬৪ বছর বয়সে মারা যান কায়েস চৌধুরী। দীর্ঘদিন ধরে কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন এই অভিনেতা, নাট্যকার ও পরিচালক।

চিত্রজগত/ঢালিউড

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়