শুক্রবার, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

বাতিঘরের ‘মাংকি ট্রায়াল’ আগামী শুক্রবার

নাট্যদল ‘বাতিঘর’ তাদের, ১৫তম প্রযোজনা ‘মাংকি ট্রায়াল’ নিয়ে আগামী ১৫ই এপ্রিল (শুক্রবার), সন্ধ্যা ৭:৩০ মিনিটে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল হলে, দর্শকের মুখোমুখি হতে চলেছে।
জেরম লরেন্স এবং রবার্ট এডউইন লি. -র ‘ইনহেরিট দ্য উইন্ড হল’-এর গল্প অবলম্বনে এই নাটকটির নির্দেশনা ও মঞ্চরূপ দিয়েছেন মুক্তনীল।

গত ৩১শে ডিসেম্বর,২০২১ উদ্বোধনী প্রদর্শনীর পর আগামী ১৫ই এপ্রিল (শুক্রবার) ‘মাংকি ট্রায়াল’-এর ৩য় প্রদর্শনী হতে যাচ্ছে। নাটকটি মূলত ১৯২৫ সালের, আমেরিকার বহুল আলোচিত ‘স্কোপস মাংকি ট্রায়াল’ ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত।

গল্পে দেখা যায়, আমেরিকার একটি রাজ্য টেনেসির হিলসবোরো শহরের একটি পাবলিক স্কুলের বিজ্ঞান শিক্ষক বার্ট্রাম কেইটস। যিনি কিনা তৎকালীন বাটলার আইন উপেক্ষা করে ছাত্রদের ঈশ্বরবাদ ও বিবর্তনবাদ সম্পর্কিত ডারউইনের থিওরি শেখানোর জন্য দোষী সাব্যস্ত হন এবং তৎকালীন প্রতিক্রিয়াশীল ও ধর্মান্ধ মৌলবাদীরা ক্রোধে ফেটে পড়ে। রাষ্ট্রীয় আইন লঙ্ঘন করা দায়ে জেলখানায় বন্দী করা হয় একজন বিজ্ঞান শিক্ষককে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হিসেবে ম্যাথিউ হ্যারিসন ব্রাডি এবং আসামীপক্ষের আইনজীবী হেনরি ড্রামন্ড, ৮ দিন ব্যাপি বিবিধ ঘটনার উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে মামলাটি এক যুগান্তকারী সিদ্ধান্তে পৌঁছায় যা ইতিহাসে এক নতুন অধ্যায়ের সুচনা করে।

বিচার প্রক্রিয়াটি বিবর্তনের সত্যতা নিয়ে একটি জাতীয় বিতর্কের সৃষ্টি করে, বৈজ্ঞানিক প্রমাণকে জনসাধারণের সামনে আনতে সাহায্য করেছিল। এই ধরনের বিতর্ক আজও অব্যাহত রয়েছে।

বাটলার আইন মূলত ১৯২৫ সালের মার্চ মাসে টেনেসি আইনসভা দ্বারা পাস হওয়া আইন যা, ঐশ্বরিক সৃষ্টিকে অস্বীকার করে এমন যে কোন মতবাদের শিক্ষাকে বে-আইনি বলে ঘোষণা করে।
মামলাটি মিডিয়াতে তীব্রভাবে আলোচিত হয় ও পুরো বিশ্বের নজর কাড়ে। সাংবাদিক ও সমালোচক ই. কে. হর্নবেকের রিপোর্টিং এর মাধ্যমে এই মামলাটি মিডিয়াতে তীব্রভাবে আলোচিত হয়।

দেশের তরুণদীপ্ত ও সম্ভাবনাময় নাটকের দল ‘বাতিঘর’ এর আগেও অলিখিত উপাখ্যান, ঊর্নাজাল, হিমুর কল্পিত ডায়েরী, র‍্যাডক্লিফ লাইনসহ বেশ কিছু মঞ্চনাটক দর্শকদের উপহার দিয়েছে।

চিত্রজগত/মঞ্চ নাটক

সংশ্লিষ্ট সংবাদ