রবিবার, ১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

অস্ত্র রাখার লাইসেন্স পেলেন সালমান

ফাইল ছবি -- চিত্রজগত.কম

বলিউডের ভাইজান খ্যাত অভিনেতা সালমান খান প্রাণনাশের হুমকি পাওয়ার পর থেকে তার নিরাপত্তাব্যবস্থা দ্বিগুণ করা হয়েছে। নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে নানা উদ্যোগও নিয়েছেন সালমান খান। সম্প্রতি মুম্বাই পুলিশের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অনুমতি পেয়েছেন ‘তেরে নাম’ খ্যাত এ অভিনেতা।

পাঞ্জাবি গায়ক সিধু মুসেওয়ালার হত্যার পরপরই সালমানকে উড়োচিঠির মাধ্যমে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয়। আর এ হুমকির মূলহোতা হিসেবে গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণ রয়েছেন বলে দাবি করেছে পুলিশ। এরপরই সালমান খান মুম্বাইয়ের শীর্ষ কর্তা বিবেক ফানসালকারের সঙ্গে দেখা করে বন্দুক রাখার লাইসেন্সের অনুমতি চান। নিজের আত্মরক্ষার্থে এবং পরিবারের সুরক্ষার কারণে এ আবেদন করেছিলেন সালমান খান। সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতেই অস্ত্র রাখার অনুমতি পেলেন সালমান।

ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানা গেছে, হত্যার হুমকির পাওয়ার পর সালমান খান নিজেকে সুরক্ষিত করার পাশাপাশি নিজের গাড়িকে আপগ্রেড করেছেন। এখন তিনি ল্যান্ড ক্রজারে ভ্রমণ করেন। আর এ গাড়ি বুলেটপ্রুফ। এমনকি গাড়ির সব কাচ বুলেটপ্রুফ বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। সালমান খান তার পুরানো গাড়ি আধুনিক প্রযুক্তিতে আপগ্রেড করেছেন। এবার থেকে সালমানকে সাদা রঙের বুলেটপ্রুফ ল্যান্ড ক্রুজারে তাকে চলাচল করতে দেখা যাবে। সালমান আগে ল্যান্ড রোভার ব্যবহার করতেন।

এদিকে অভিনেতার ব্যক্তিগত নিরাপত্তাও বাড়ানো হয়েছে। যেমন জনসাধারণের মধ্যে না যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে সালমান খানকে। প্রায়ই বান্দ্রার রাস্তায় সাইকেল চালাতেন তিনি। হত্যার হুমকি পাওয়ার পর তাকে সাইকেল চালাতেও নিষেধ করেছে মুম্বাই পুলিশ।

মুম্বাই পুলিশ এএনআইকে দেয়া এক বিবৃতিতে জানায়, সালমান খান সম্প্রতি হুমকি চিঠি পাওয়ার পর মুম্বাই পুলিশে আত্মরক্ষার জন্য অস্ত্রের লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেছিলেন।

গেল ৫ জুন ভোরে সালমান খানের বাবা এক উড়োচিঠি পেয়েছিলেন। চিঠিতে সালমান খান আর তার বাবাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয়। চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, গায়ক সিধু মুসেওয়ালার মতো তাদের হাল হবে। পুলিশের সন্দেহ ১৯৯৮ সালে কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলার সঙ্গে এ উড়োচিঠির সম্পর্ক আছে। -সূত্র: জিনিউজ ইন্ডিয়া

চিত্রজগত/বলিউড

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়