বৃহস্পতিবার, ৯ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

দীর্ঘ বিরতির পর অভিনয়ে আদিত্য আলম

দীর্ঘ বিরতির পর ফের ক্যামেরার সামনে আদিত্য আলম। কাজ শুরু করেছেন মঞ্চ, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা, নাট্যকার ও পরিচালক।

২০১৯ সালের ২৮ অক্টোবর তার ছোট মেয়ে শীলতাকে নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করানোর জন্য রিক্সায় নিয়ে যাওয়ার সময় ঢাকা সিটি কলেজের সামনে মূল সড়কে উঠার সাথে সাথে ভয়ঙ্কর এক বাস তাদের বহনকারী রিক্সাটিকে সজোরো ধাক্কা মেরে উল্টে ফেলে দিয়ে দ্রত গতিতে বাস টি পালিয়ে যায়। মেয়ে তেমন গুরুতর আঘাত না পেলেও আদিত্য আলম রিক্সা থেকে ছিটকে পড়ে কলেজের দেয়ালে মারাত্মকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হন, সাথে সাথে সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়ে যান।

উপস্থিত লোকজন গুরুতর আহত আদিত্য আলমকে প্রথমে কাছের পপুলার হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করানো পর তার পরিবারের সদস্যরা জানতে পারেন ইতিমধ্যে আদিত্য আলম স্ট্রোক করেছেন। পপুলার হাসপাতালে তিনি কোমায় চলে যান।

প্রায় ষোল মাস পর টানা চিকিৎসা নেওয়ার পর তার সংজ্ঞা ফেরে। কিন্তু পরিবারের সদস্য, আত্মীয়-স্বজন কাউকেই তিনি চিনতে পারছিলেন না, স্মৃতি ভ্রম হয়ে যায় তার। চিকিৎসক এবং স্ত্রী-সন্তানদের অক্লান্ত সেবা- সু-চিকিৎসা করার পর সকলের দোয়ায় আদিত্য আলম সুস্থ হন এবং স্মৃতিশক্তি ফিরে পান।

সুস্থ হয়ে প্রথমে প্রখ্যাত নির্মাতা নজরুল কোরেশী নির্দেশিত কমিউনিটি ক্লিনিকের একটি সরকারি বিজ্ঞাপনচিত্রে, ডকুমেন্টারিতে অভিনয় করেন। ঈদের খন্ড নাটকসহ বেশকিছু নাটক ও শর্টফিল্মে ইতিমধ্যে কাজ করেছেন। সরকার মিল্টন পরিচালিত একটি খন্ড নাটকে অভিনয় করেছেন। বর্তমানে বিভিন্ন পরিচালক তার সাথে কাজের ব্যাপারে যোগাযোগ শুরু করেছেন।

সত্তুরের দশক থেকে আদিত্য আলম নিজ জেলা নীলফামারীতে শিশু নাট্যশিল্পী হিসেবে বড়দেও সাথে অভিনয় শুরু করেন। পরে নিজেই একটি নাটকের দল গঠন করেন। সেখানে সব নাটকে তিনি অভিনয় ও নির্দেশনা দিয়েছেন। ঢাকায় এসে প্রথমে দৃষ্টিপাত, কুশীলব ও পরে আরণ্যক নাট্যদলে যুক্ত হয়ে মঞ্চ নাটকে দীর্ঘসময় অতিবাহিত করেন।

১৯৮৯ সালে খ্যাতিমান পরিচালক তানভীর মোকাম্মেলের সিনেমা নদীর নাম মধুমতি দিয়ে তার মিডিয়ায় অভিনয় করা শুরু হয়। বিখ্যাত চলচ্চিত্র ও নাট্যনির্মাতা প্রয়াত আমজাদ হোসেন পরিচালিত অধিকাংশ সিনেমা ও নাটকে একটানা অভিনয় করে গেছেন। পরবর্তীতে দেশের অনেক খ্যাতিমান পরিচালকের বিকল্পধারার চলচ্চিত্রগুলোতে অভিনয় করেন। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেন- প্রয়াত আজিজুর রহমান, বেলাল আহমেদ, হাফিজ উদ্দিন, মতিন রহমান, আবু সাইয়ীদ, নার্গিস আক্তার ও ওয়াহিদুজ্জামান ডায়মন্ড এর অধিকাংশ নাটক ও সিনেমাতে আদিত্য আলম অভিনয় করেছেন। তৎকালীন বাংলাদেশ টেলিভিশনের দর্শকপ্রিয় বেশ কিছু নাটক পরবর্তীতে বিভিন্ন প্যাকেজ নাটক-টেলিফিল্ম এবং চলচ্চিত্রে বিভিন্ন চরিত্রে সুনামের সাথে অভিনয় করেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা। ওপাড় বাংলার পরিচালক বিশে^ন্দু নাথের মাই ফাদার সু নামে একটি সিনেমাতেও তিনি অভিনয় করেছেন প্রধান চরিত্র।

বর্তমানে তার বিজ্ঞাপনী সংস্থা থেকে বন, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীন বন অধিদপ্তর আয়োজিত জাতীয় বৃক্ষ রোপন অভিযান ও বৃক্ষমেলা-২০২২ এর ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের কাজ পেয়েছেন। আগামী ৫ জুন থেকে শুরু হয়ে মাসব্যাপী চলবে। এখানে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে মেলা উপলক্ষ্যে বিশেষ টক শো’র অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা করার দায়িত্ব তাকে অর্পণ করা হয়েছে। আমরা তার ভবিষ্যত সাফল্য কামনা করি।

চিত্রজগত/টেলিভিশন

সংশ্লিষ্ট সংবাদ