শুক্রবার, ৩১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

রুনা লায়লার জন্মদিন আজ

উপমহাদেশের স্বনামধন্য কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লার ৬৯ তম জন্মদিন আজ। দীর্ঘ পাঁচ দশকে যিনি উপহার দিয়েছেন অসংখ্য কালজয়ী গান। বাংলাদেশকে সাফল্যের সঙ্গে উপস্থাপন করেছেন আন্তর্জাতিক অঙ্গনে। চলচ্চিত্রের গানে কন্ঠ দেয়ার পাশাপাশি উপহার দিয়েছেন বিভিন্ন ঘরানার হাজারো জনপ্রিয় গান। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ পেয়েছেন দেশ-বিদেশের নানা সম্মাননা।

ষাটের দশকে যাত্রা শুরুর পর জীবন্ত কিংবদন্তি রুনা লায়লা থেকে আজ অবধি ছড়িয়ে যাচ্ছেন কণ্ঠের মায়াজাল। গানের তালে নৃত্য, হাতের ভঙ্গিমা ও ফ্যাশনে তৈরি করেছেন স্বকীয়তা। তাঁর কণ্ঠের জাদুতে মুগ্ধ কোটি ভক্ত-শ্রোতা। ভারত ও পাকিস্তানের চলচ্চিত্রে গান করেও পেয়েছেন তুমুল জনপ্রিয়তা।

১৯৫২ সালের এই দিনে সিলেটে জন্মগ্রহণ করেন প্রখ্যাত এই শিল্পী। বাবার চাকরির কারণে পাকিস্তানের লাহোরে শৈশব কাটে রুনা লায়লার। মা অনিতা সেন আর মামা বিখ্যাত সংগীত শিল্পী সুবীর সেনের হাত ধরে সঙ্গীতের হাতেখড়ি।

ছোটবেলা থেকেই নিয়মিত পাকিস্তান টেলিভিশনে গান গাইতেন। পাকিস্তানের ‘যুগ্নু’ চলচ্চিত্রে গান করার মধ্য দিয়ে প্লে-ব্যাক শুরু। ১৯৭৪ সালে বাংলাদেশের ‘জীবন সাথী’ ছবিতে প্রথম প্লেব্যাক করেন। লোকজ, পপ, রক ও গজলসহ প্রায় সব ধাঁচের গানই গেয়েছেন তিনি।

বাংলা, হিন্দি, উর্দু ও ইংরেজিসহ ১৮টি ভাষায় ১০ হাজারেরও বেশি গানে কন্ঠ দিয়েছেন রুনা লায়ল।। নন্দিত এই শিল্পী অভিনয় করেছেন ‘শিল্পী’ নামক চলচ্চিত্রেও। সিনেমার গানে অনবদ্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে সাতবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ পেয়েছেন বহু সম্মাননা। অর্জন করেছেন আন্তর্জাতিক পুরস্কারও।

আজ উনসত্তরে পা দিলেন সুরের পাখি রুনা লায়লা। জন্মদিনে তাঁকে শুভেচ্ছা ও ভালেবাসা জানিয়েছেন কাছের মানুষসহ অসংখ্য ভক্ত-অনুরাগী।

চিত্রজগত/সঙ্গীত

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়