সোমবার, ১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

যেভাবে ফ্রিজ চালালে বিদ্যুৎ বিল আসবে অনেক কম

একটি ভালো মানের রেফ্রিজারেটরে বিদ্যুতের বিল প্রতি মাসে গড়ে দুই শ থকে আড়াই শ টাকার মতো আসে। যা বাড়ির বিদ্যুৎ বিলের একটি বড় অংশ। বর্তমান পরিস্থিতিতে ফ্রিজ না ব্যবহার করেও উপায় নেই। এমন পরিস্থিতিতে ঠিক কোন উপায়ে মিলবে সমাধান তাই নিয়ে বিস্তারিত থাকছে আজকের এই আয়োজনে।

বর্তমান সময়ে ফ্রিজ ছাড়া একটি দিনও ভাবতে পারে না বেশিরভাগ মানুষই। ফলমূল, শাক-সবজি তরতাজা রাখা এবং চাইলেই ঠান্ডা ঠান্ডা পানীয় খেতে পারা সে তো ফ্রিজ থাকলেই সম্ভব। ফ্রিজের এত উপকারিতা থাকার পরও একটি দিক অনেকের মন খারাপ করে দিতে পারে। মাস শেষে বিদ্যুৎ বিলের কাগজ হাতে পেলেই পড়ে কপালে ভাঁজ। ফ্রিজ ব্যবহার করলে বিদ্যুৎ খরচ যে বেশি হয় এ কথা তো সবারই জানা।

গরমের এই সময়টাতে ফলমূল, শাকসবজি, রান্না করা খাবার ভালো রাখতে ফ্রিজ ছাড়া যেন গতি নেই। কিন্তু এসির মতো ফ্রিজ ব্যবহারেও বিদ্যুতের বিল বেশি ওঠে। কেননা ২৪ ঘণ্টাই ফ্রিজ চালু রাখতে হয়।

বিদ্যুতের বিল বেশি আসছে বলে ফ্রিজ ব্যবহার করা বন্ধ করে দেওয়া সমাধান নয়। তাই আজ আপনাদের জানাবো ফ্রিজ ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম। যা মেনে চললে সারা দিন ফ্রিজ চালিয়েও বিদ্যুতের বিল আসবে অনেক কম।

ফ্রিজ কখনও খালি রাখা যাবে না: ফ্রিজে বেশি জিনিসপত্র রাখলে অনেকেই ভাবেন এতে বিদ্যুৎ বিল বেশি আসে। এই ধারণা কিন্তু অনেকটাই ভ্রান্ত। বরং ফ্রিজের ভেতরে জায়গা ফাঁকা থাকলে তাপমাত্রা ধরে রাখার ক্ষমতা কমে যায়। এতে বিদ্যুৎ বিল বেশি আসে। তাই ফ্রিজ খালি অবস্থায় চালাবেন না। এতে বিল বেশি আসবে। তাই ফ্রিজে সব সময় বাতাস চলাচল করতে পারে এমন পর্যাপ্ত খাবার রাখুন।

ফ্রিজের তাপমাত্রা নির্ধারণ: আবহাওয়া এবং প্রয়োজন অনুযায়ী ফ্রিজের তাপমাত্রা ঠিক করুন। শীত আর গরমে ফ্রিজের তাপমাত্রা একই হবে না। গরমে ফ্রিজের তাপমাত্রা ৩ নম্বর মাত্রায় রাখতে পারেন। আর শঅতের সময় এই পয়েন্ট কমিয়ে আনুন ২ এ। এতে ফ্রিজও বেশি দিন ভালো থাকবে সেইসঙ্গে বিদ্যুৎ বিলও কম আসবে।

ফ্রিজের দরজা খুলে রাখবেন না: ফ্রিজ থেকে প্রয়োজনীয় জিনিস বার করতে অনেকেই ফ্রিজের দরজা অনেক সময় ধরে খুলে রাখেন। এই অভ্যাসের কারণেও আপনার বিদ্যুৎ বিল বেশি আসবে। কেননা এই অভ্যাসে ফ্রিজের ভেতরের ঠান্ডা বেরিয়ে যায়। ফলে কম্প্রেসারের উপর চাপ পড়ে। তখন ফ্রিজ নিজেকে ঠান্ডা রাখার জন্য বাড়তি বিদ্যুৎ খরচ করে।

লবণ-পানির ব্যবহার: অনেক সময় বিদ্যুৎ চলে যাওয়ার কারণে ফ্রিজের খাবার নষ্ট হওয়ার ভয় থাকে। এই ভয় এড়াতে একটি কাজ করতে পারেন। একটি বোতলে পানি ও লবণ গুলে ফ্রিজে রেখে দিতে পারেন। এটি ফ্রিজের ভেতরের তাপমাত্রা ঠিক রাখতে সাহায্য করবে। তাহলে বিদ্যুৎ চলে গেলেও ফ্রিজের ভেতরের খাবার নষ্ট হবে না।

গরম খাবার ফ্রিজে রাখবেন না: ফ্রিজে খাবার ঢোকানোর আগে ভালো করে ঠান্ডা করে নিন। গরম খাবার ফ্রিজে ঢোকালে তা ঠান্ডা করতে কম্প্রেসারের উপর বাড়তি চাপ পড়ে। যা বিদ্যুৎ বিল বেড়ে যাওয়ার অন্যতম একটি কারণ।

এছাড়া নিয়মিত ফ্রিজ পরিষ্কার রাখতে চেষ্টা করুন। সপ্তাহে একবার ফ্রিজের বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে ভালো করে ফ্রিজ পরিষ্কার করুন। ফ্রিজ পরিষ্কার থাকলে বিদ্যুৎ বিল কম আসে। এছাড়া অপ্রয়োজনে ফ্রিজ খোলার প্রবণতা বন্ধ করতে পারলে আপনি বিদ্যুৎ বিল অনেকটাই সাশ্রয় করতে পারবেন। সূত্র: আনন্দবাজার

চিত্রজগত/লাইফ স্টাইল

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়