রবিবার, ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

নায়ক আলমগীরের জন্মদিন আজ

ঢাকাই সিনেমার চিরসবুজ অভিনেতা আলমগীর। একাধারে তিনি একজন নায়ক, প্রযোজক, পরিচালক। ১৯৫০ সালের আজকের এই দিনে (৩ এপ্রিল) ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগরে জন্মগ্রহণ করেন। ৭২তম জন্মদিনে এ নায়ককে ফুলেল শুভেচ্ছা।

আশি ও নব্বইয়ের দশকে দাপুটে অভিনেতা ছিলেন আলমগীর। সামাজিক, পারিবারিক, অ্যাকশন, রোমান্টিক ধাঁচের সিনেমায় অভিনয় করে দর্শক হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। সব চরিত্রে তিনি দেখিয়েছেন মুনশিয়ানা।

আলমগীরের বাবা কলিম উদ্দিন আহম্মেদ ওরফে দুদু মিয়া ঢালিউডের প্রথম সবাক চলচ্চিত্র ‘মুখ ও মুখোশ’-এর অন্যতম প্রযোজক ছিলেন। সিনেমা জগতের আবহেই তার বেড়ে ওঠা। এ জন্যই হয়তো ক্যারিয়ার হিসেবে অভিনয়কে বেছে নিয়েছেন।

চলচ্চিত্রে তার অভিষেক হয় ১৯৭৩ সালে ‘আমার জন্মভূমি’ সিনেমা দিয়ে। ১৯৮৫ সালে তিনি পরিচালনা শুরু করেন। ১৯৮৫ সালে ‘মা ও ছেলে’ সিনেমায় অভিনয় করে প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘরে তোলেন আলমগীর। অভিনয় ক্যারিয়ারে ২২৫টিরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করেছেন।

কাজের স্বীকৃতি হিসেবে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা ও শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব-অভিনেতা বিভাগে নয়বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেছেন। এ ছাড়া ফজলুল হক স্মৃতি পুরস্কারসহ অসংখ্য সম্মাননা পেয়েছেন তিনি। ২০১৯ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ‘আজীবন সম্মাননায়’ ভূষিত হন এ অভিনেতা।

শুধু অভিনয় নয়, গানও গাইতে পারেন আলমগীর। একসময় রাজধানীর গ্রিনরোডে একটি স্কুলে সংগীতশিল্পী সৈয়দ আব্দুল হাদীর কাছে গান শিখেছিলেন। কণ্ঠশিল্পী হিসেবে চলচ্চিত্রেও গান গেয়েছেন। ‘আগুনের আলো’ চলচ্চিত্রে তিনি প্রথম কণ্ঠ দেন। এরপর ‘কার পাপে’, ‘ঝুমকা’ ও ‘নির্দোষ’ চলচ্চিত্রেও গান গেয়েছেন।

চলচ্চিত্রের জন্য নিবেদিতপ্রাণ আলমগীর। চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ১৯ সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত ‘সম্মিলিত চলচ্চিত্র পরিষদ’-এর আহ্বায়ক হিসেবে আছেন তিনি। এর আগে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন আলমগীর।

চিত্রজগত/চলচ্চিত্র

সংশ্লিষ্ট সংবাদ