শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

চিত্রপরিচালক আকবর কবীর পিন্টু এর পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

বাণিজ্যসফল ও সামাজিক চলচ্চিত্রের একজন গুণি নির্মাতা ছিলেন আকবর কবীর পিন্টু। এই গুণী চিত্রপরিচালক এর পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। তিনি ২০১৭ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি, ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। আজকের এই দিনে বিনম্র শ্রদ্ধায় তাঁকে স্মরণ করছি। তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করি।

আকবর কবীর পিন্টু ১৯৪৫ সালের ২২ মে, নোয়াখালি জেলার বেগমগঞ্জে, জন্মগ্রহন করেন। আইন বিষয়ে লেখা-পড়া করলেও, শেষ পর্যন্ত তিনি চলে আসেন চলচ্চিত্রে।

১৯৬৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত, ই আর খান পরিচালিত ‘চেনা-অচেনা’ ছবি’র সহকারী পরিচালক হিসেবে তাঁর চলচ্চিত্রে আগমন।
১৯৭০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘রং বদলায়’ ছবি’র মাধ্যমে তিনি পুর্ণাঙ্গ পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন। এরপরে তিনি বেশকিছু ভালো মানের জনপ্রিয় চলচ্চিত্র পরিচালনা করেছেন। আকবর কবীর পিন্টু নির্মিত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রসমূহ- ‘রং বদলায়’, ‘পলাশের রং’, ‘উৎর্সগ’, ‘মামা ভাগ্নে’, ‘বাদশা’, ‘কথা দিলাম’, ‘গাঁয়ের ছেলে’, ‘কালো গোলাপ’, ‘ওগো বিদেশিনী’, ‘আওয়াজ’, ‘বাগদত্তা’, ‘অগ্নি পরীক্ষা’, ‘লাওয়ারিশ’ প্রভৃতি।

চলচ্চিত্রের সঙ্গে দীর্ঘ সময় কাটিয়েছেন এই নির্মাতা। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি’র মহাসচিব হিসেবেও (১৯৮৭-৮৮) দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি’র সম্মানিত প্রতিষ্ঠাতা-আজীবন সদস্য ছিলেন আকবর কবীর পিন্টু।

এক সময় তিনি চলচ্চিত্র থেকে দূরে সরে গিয়ে শিক্ষকতায় মনোনিবেশ করেন। প্রতিষ্ঠা করেন ‘চিলড্রেন্স গার্ডেন’ স্কুল। আমৃত্যু শিক্ষকতায়ই নিয়োজিত ছিলেন এই শিক্ষানুরাগী।

সুস্থ-সামাজিক চলচ্চিত্রের সফল নির্মাতা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন তিনি। জনপ্রিয় চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে খ্যাতি ছিল তাঁর। রুচিসম্মত বাণিজ্যিকধারার, বিনোদনধর্মী ছবি নির্মাণে তিনি ছিলেন অনন্য কারিগর। বাংলাদেশের সিনেমা দর্শকদের পছন্দের তালিকায় ছিল, পরিচালক আকবর কবীর পিন্টু’র নাম। সে নাম চলচ্চিত্রশিল্প থেকে মুছে যাবার নয়।

চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টদের কাছে একজন ভালো মানুষ হিসেবে সুপরিচিত ছিলেন চিত্রপরিচালক আকবর কবীর পিন্টু। অনন্তলোকে তিনি ভালো থাকুন- এই প্রার্থণা করি।

চিত্রজগত/চলচ্চিত্র

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়