রবিবার, ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

চলচ্চিত্রাভিনেত্রী দিলারা’র জন্মদিন আজ

বাংলাদেশের প্রখ্যাত চলচিত্রাভিনেত্রী দিলারার জন্মদিন আজ। তাঁর পুরো নাম দিলারা ইয়াসমিন। তিনি ১৯৬০ সালের ২৭ শে জানুয়ারিতে জন্মগ্রহন করেন। পৈত্রিক নিবাস গোপালগঞ্জে। জন্মদিনে চিত্রজগত পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁর প্রতি রইলো অনেক অনেক শুভেচ্ছা। তাঁর সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘ জীবন কামনা করছি।

চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেন এর ‘সুন্দরী’ ছবির মাধ্যমে রুপালী জগতে আগমন, তারপর দেশবরেণ্য অনেক পরিচালকের ছবিতে কাজ করেছেন। ছবির পরিমাণ খুব বেশি না হলেও যতগুলো ছবি করেছেন তার প্রায় সবগুলোই ব্যাবসা সফলতা পেয়েছে।

একসময় বেশকিছু টেলিভিশন নাটকেও অভিনয় করেছেন এবং প্রশংসিত হয়েছেন। পাশাপাশি জড়িত আছেন রাজনৈতিক কর্মকান্ডে নিজেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে পরিচয় দিতে গর্ববোধ করেন।

চলচ্চিত্রাভিনেত্রী দিলারা ইসায়মিন। যিনি সত্তর-আশির দশকে দাপিয়ে অভিনয় করেছেন রূপালি পর্দায়। ‘জালিম’, ‘জুলুম’, ‘ব্যথার দান’, ‘অসতী’, ‘আওলাদ’, ‘শাহাজাদা’, ‘সম্রাট’, ‘হাইজ্যাক’ ছাড়াও অসংখ্য সুপারহিট ছবিতে অভিনয় করেছেন।

এরপর ১৯৯৭ সালে ‘বাহরাম বাদশা’ ছবিতে সর্বশেষ অভিনয় করেন। তারপর অভিনয় থেকে দূরে সরে সংসারে মনোযোগী হন। এরই মাঝে কেটে গেছে ২০ বছর!

সম্প্রতি তিনি আবার অভিনয়ে ফিরেছেন মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত ‘দুলাভাই জিন্দাবাদ’ ছবিতে। তবে, ভালো গল্প ও নির্মাতার ছবি পেলে কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন।

সংসারে মনোযোগী হওয়ার কারণে চলচ্চিত্রে অভিনয় করা থেকে বিরত থাকলেও এই অঙ্গনের মানুষগুলোর সাথে খুব ভালো সম্পর্ক রেখে গেছেন।

তিনি বলেন, ‘আমি সংসারে মনোযোগী ছিলাম। আমার এক মেয়ে আছে। তাকে বড় করেছি। বিয়ে দিয়েছি, তার একটা বাচ্চাও হয়েছে। আর এর ফাঁকে দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়িয়েছি।’

বর্তমানে চলচ্চিত্রের অবস্থা আগের মতো রমরমা হচ্ছে বলে মনে করেন দিলারা ইয়াসমিন। তিনি বলেন, ‘কয়েক বছর আগেও আমাদের ফিল্মের অবস্থা খারাপ ছিল। তখন অশ্লীল আর পাইরেসির তোপে দমে গিয়েছিল আমাদের ফিল্ম। এখন আবার আগের মতো জৌলুস ফিরে আসছে। আমার মনে হয় আগামীতে আরও ঘুরে দাঁড়াবে। কিছুদিন আগে আমি ‘আয়নাবাজি’ ছবিটা দেখেছি। দারুণ লেগেছে আমার কাছে। এই ধরনের ব্যতিক্রমী গল্পের ছবি বানিয়ে আবারও দর্শকদের হলমুখী করা যেতে পারে।’

চিত্রজগত/ঢালিউড

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়