বৃহস্পতিবার, ৭ই ডিসেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

কেকের শেষকৃত্য সম্পন্ন

ভারতের জনপ্রিয় সংগীত তারকা কেকের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২ জুন) দুপুর দেড়টার দিকে মুম্বাইয়ের ভারসোভা এলাকার মুক্তিধাম শ্মশানে নিয়ে যাওয়া হয় কেকের মরদেহ। সেখানে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। কেকের পুত্র নকুল কৃষ্ণ কুন্নাথ শেষকৃত্যের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন।

কেকের শেষকৃত্যে শ্রদ্ধা জানাতে হাজির হয়েছিলেন তার ভক্ত-অনুরাগীরা। অলকা ইয়াগমিন, শ্রেয়া ঘোষাল, অভিজিৎ ভট্টাচার্যসহ অনেক তারকা উপস্থিত হয়েছিলেন। প্রিয় তারকার শেষযাত্রায় শামিল হয়ে শ্মশানে পৌঁছান ভক্তরা, চোখের জলে বিদায় জানান প্রিয় শিল্পীকে।

গান গাইতে গাইতেই না ফেরার দেশে চলে গেলেন সংগীতশিল্পী কেকে। রেখে গেলেন অনেক প্রশ্ন আর বিতর্ক। তার অস্বাভাবিক মৃত্যুর জন্য কলকাতার নিউমার্কেট থানায় মামলা করেছে পুলিশ। শারীরিক অসুস্থতা নাকি অন্য কোনো কারণে এ সংগীতশিল্পীর মৃত্যু হয়েছে, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সোমবার (৩০ মে) ও মঙ্গলবার (৩১ মে) কলকাতার নজরুলমঞ্চেই ঠাকুরপুকুরের বিবেকানন্দ কলেজের অনুষ্ঠানে গান গেয়েছিলেন কেকে। স্টেজ পারফর্ম করার সময় অসুস্থ বোধ করেন ৫৪ বছর বয়সী কেকে। হোটেলে ফিরে যাওয়ার পর অবস্থার অবনতি হলে তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হিন্দি, বাংলাসহ একাধিক ভাষায় গান গেয়ে ভক্তদের মন কেড়ে নিয়েছিলেন কৃষ্ণকুমার কুন্নাথ। বেশির ভাগ অনুরাগী তাকে কেকে নামেই চিনতেন। গায়কের প্রয়াণে অনুরাগীদের কানে বারবার যেন বেজে উঠছে তার গাওয়া একের পর এক জনপ্রিয় গান। কেকে তার সংগীতজীবন শুরু করেছিলেন তার মায়ের মালয়ালি গান শুনে। সে সময় তার মায়ের গান রেকর্ড করেছিলেন তার নানা। তিনি যখন ক্লাস টু-তে পড়েন, সে সময় প্রথমবারের মতো স্টেজ পারফর্ম করেছিলেন।

ছোটবেলার প্রেমিকা জ্যোতি কৃষ্ণাকে বিয়ে করেন কেকে। বলিউডের সিনেমায় গান করার আগে কেকে আট মাসের মতো সেলসম্যানের চাকরি করেছিলেন। এরপর চাকরি ছেড়ে ১৯৯৪ সালে মুম্বাই পাড়ি দেন। সেখানে প্রথমে বেশ কিছুটা সময় প্লেব্যাকের সুযোগ পাননি কেকে। সেই সময়টা প্রায় সাড়ে তিন হাজার বিজ্ঞাপনের জিঙ্গলে কণ্ঠ দিয়েছিলেন।

‘হাম দিল দে চুকে সানম’ সিনেমার ‘তড়প তড়প’ গানটি দিয়েই কেকের প্রথম বলিউডে অভিষেক হয়। এই গানের জনপ্রিয়তা সম্পর্কে বলাই বাহুল্য। গান এবং সিনেমার সঙ্গে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে কেকে। এরপর একের পর এক সিনেমায় হিট গান উপহার দিয়েছেন দর্শকদের। বলিউড অভিনেতা ইমরান হাশমি তার গাওয়া বহু গানে ঠোঁট মিলিয়েছেন।

স্টেজ পারফরম্যান্সেও দারুণ জনপ্রিয় ছিলেন কেকে। তাই তো বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দর্শকের অন্যতম আকর্ষণ ছিল কেকের পারফরম্যান্স। সেই স্টেজ পারফরম্যান্স শেষ করেই না ফেরার দেশে চলে গেলেন জনপ্রিয় এই গায়ক।

চিত্রজগত/বলিউড

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়