শুক্রবার, ৩১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

কারিনার ঠোঁটে বিপাশার ঠোঁট!

ঠোঁটে ঠোঁট রেখে ব্যারিকেড গড়ে প্রেমের গল্প। আর ঠিক তেমনি দেখাচ্ছে যেনো কারিনার ঠোঁটে বিপাশার ঠোঁট রাখার ছবিটি। সম্প্রতি প্রকাশিত এক ছবিতে বলিউডের এই দুই নায়িকাকে এক পুরস্কারের মঞ্চে একে অপরের ঠোঁটে ঠোঁট রেখে আলিঙ্গন করতে দেখা গেছে।

তবে এই দুই নায়িকার অতীত জানা ভক্তকূল যেনো এই দৃশ্য দেখে তাল খুঁজে পাচ্ছেননা। রেকর্ড বলছে এই দুই নায়িকা মধ্যে সর্ম্পক নিয়ে রয়েছে বেশ আলোচনা। আর বলিউডের নায়িকারা পরস্পরের বন্ধু, অন্তত তেমন কোনও উদাহরণ আজ পর্যন্ত দেখেনি বলিউড।

এই দুই নায়িকার ঝগড়ার শুরু হয়েছিল ‘আজনবি’ ছবির সেটে। বলিউডে বিপাশার প্রথম ছবি ‘আজনবি’। ছবিতে তার সহ অভিনেত্রী ছিলেন কারিনা। আর সেই শুটিং সেটেই নাকি দুই নায়িকার ঝগড়া হয়েছিল তাদের পোশাকশিল্পীকে নিয়ে।

‘কালো বিড়াল’ বিতর্ক ২০০১ সালে রীতিমতো হইচই ফেলেছিল রূপোলি দুনিয়ায়। কারিনার ব্যক্তিগত পোশাকশিল্পী নাকি তার অনুমতি না নিয়েই বিপাশাকে তার পোশাকের ব্যাপারে সাহায্য করেছিলেন। তাতে কারিনা রেগে যান। দু’জনের তুমুল ঝগড়া হয়। কারিনা প্রকাশ্যে চড় মারেন বিপাশাকে। বলিউডে নবাগতা বাঙালি নায়িকাও না কি পাল্টা জবাব দিতে ছাড়েননি।

বলিউডে দু’জনের ঝগড়া মারাত্মক আকার নিয়েছিল এক সময়। নিন্দুকেরা বলেন, শালীনতা আর পেশাদার সৌজন্যবোধের সীমা লঙ্ঘন করে কুৎসিত পর্যায়ে পৌছেছিল দুই অভিনেত্রীর লড়াই।

নায়িকাদের মনমালিন্য প্রকাশ্যে চলে আসে বিপাশার দেওয়া সাক্ষাৎকারে। ২০০১ সালে ওই সাক্ষাৎকারে বিপাশা বলেছিলেন, ‘‘আমার কোনও সমস্যা ছিল না। কারিনারই পোশাকশিল্পীর সঙ্গে সমস্যা হয়েছিল। এর মধ্যে আমায় কেন টানা হল জানি না।’’ তবে একই সঙ্গে বিপাশা জানিয়েছিলেন, ভবিষ্যতে করিনার সঙ্গে আর কখনও ছবি করবেন না তিনি।

কারণ জানতে চাওয়া হলে নায়িকা বলেছিলেন, ‘‘ব্যক্তিগত সম্পর্ক ভাল না হলে পর্দায় তার প্রভাব পড়তে বাধ্য। কারিনার সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত স্তরে কথাবার্তা নেই। তাই ভবিষ্যতে আমরা কখনও একসঙ্গে ছবি করব বলে মনে হয় না।’

বিপাশাকে এই মন্তব্যের জবাব দিতে দেরি করেননি কারিনাও। ২০০২-এ একটি সাক্ষাৎকারে বেবো বলেন, ‘‘চার পাতার সাক্ষাৎকারের তিন পাতা জুড়ে আমার কথাই বলে গিয়েছে বিপাশা। আমার মনে হয়, ওর নিজের কাজ সম্পর্কে বলার কিছু নেই। ওর খ্যাতির একমাত্র কারণ আমার সঙ্গে ঝগড়া। তাই এই নিয়েই কথা বলেছে।’’

এমনই সেই ঝগড়া যে টানা ১৩ বছর মুখোমুখি হননি কারিনা-বিপাশা। ২০১৪ সালে তাদের একসঙ্গে দেখা যায় এক মঞ্চে। সেখানেই ঘটনাটি ঘটে। যদিও এই ছবিতে গলায় গলায় বন্ধুত্বও দেখা যায় এই দুই নায়িকার । তবে বলিউড পর্যবেক্ষকদের বক্তব্য, এ সবই নাকি ‘লোক দেখানো’। সময় বিশেষে গলায় গলায় ভাব ভুলে প্রকাশ্যে গালিগালাজ করতে বিন্দুমাত্র সময় নেন না এই নায়িকারা।

কিন্তু বিপাশা-কারিনার ঘনিষ্ঠরা অবশ্য বলেছিলেন, দু’জনের ঝগড়া থামানোর ইঙ্গিত ছিল এই ঘটনা। পুরনো ঘটনা ভুলে এ বার দু’জনেরই এগিয়ে যাওয়ার সময়। সূত্রঃ আনন্দবাজার

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়