শুক্রবার, ৩১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

এক সপ্তাহে তিন ইরানী চলচ্চিত্রকার গ্রেফতার

ছবি: সংগ্রহ -- চিত্রজগত.কম

২০১৫ সালের বার্লিন পুরস্কার বিজেতা ইরানী চলচ্চিত্র নির্মাতা জাফর পানাহিকে সতীর্থ আরেক নির্মাতাকে নিয়ে প্রশ্ন করতে ডেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

ইরানের গণমাধ্যম জানায়, দুই চলচ্চিত্রকার মোহাম্মাদ রাসোলফ এবং মোস্তফা আলেহমাদকে আটকের বিষয়ে প্রসিকিউটারের অফিসে গেলে জাফর পানাহিকেও গ্রেফতার করা হয়। জানা যায় ৬২ বছর বয়সী এই নির্মাতা আধুনিক ইরানের সমালোচনামূলক চলচ্চিত্রের জন্য আন্তর্জাতিক উৎসবে বেশ কয়েকটি পুরস্কার জিতেছেন। যার মধ্যে ২০১৫ সালে বার্লিনে ‘ট্যাক্সি’ সিনেমাটির জন্য শীর্ষ পুরস্কার এবং ২০১৮ সালে ‘থ্রি ফেসেস’র জন্য কানে সেরা চিত্রনাট্য জিতেছেন জাফর।

রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা জানায়, ২৩ মে ইরানের আবাদান শহরের ১০ তলা মেট্রোপল ভবন ধসে ৪৩ জনের মৃত্যুর ঘটনায় প্রতিবাদ করায় রাসোলফ এবং আলেহমাদকে গ্রেফতার করা হয়। ইরানি কর্তৃপক্ষ দাবী করে দেশটির বাইরে অবস্থিত বিরোধী দলগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক থাকায় এবং রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা নষ্ট করার ষড়যন্ত্র করতেই ভবন ধসের মত হৃদয় বিদারক ঘটনাকে পুঁজি করে দেশে অশান্তি সৃষ্টি করতে চেয়েছিলেন গ্রেফতারকৃত নির্মাতারা।

মেট্রোপল ভবন ধসের ঘটনায় অতীতের জাতীয় বিপর্যয়ের ঘটনাগুলিকে নতুন করে চাঙ্গা করে দেয়ার পাশাপাশি ইরানের ত্রুটিপূর্ণ নির্মাণ কৌশল, সরকারি দুর্নীতি এবং অবহেলার দিকটি উঠে এসেছে।

রাসোলফ তার চলচ্চিত্র ‘দেয়্যার ইজ নো ইভিল’র জন্য ২০২০ সালে বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবে শীর্ষ পুরস্কার জেতেন। যেটি ইরানে মৃত্যুদণ্ড এবং অত্যাচারের উপর নির্মাণ করা হয়েছিলো। পুরষ্কার পাওয়ার পরপরই তাকে তিনটি চলচ্চিত্রের জন্য এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

২০১১ সালে সরকার বিরোধী বিক্ষোভের পরে চলচ্চিত্রকার রাসোফলফের সাথে গ্রেফতার হয়েছিলেন জাফর এবং সেসময় ছয় বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন তিনি যার পর তাদের কাউকেই আর দেশ ত্যাগের অনুমতি দেওয়া হয়নি। এবং ২০ বছরের জন্য তাদের সিনেমা নির্মাণে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়, তবে আপিলের ভিত্তিতে রাসউলফের সাজা হ্রাস করা হয়েছিল। একই বছর, রাসোলফের চলচ্চিত্র ‘গুডবাই’ কানে একটি পুরস্কার জিতেছিল কিন্তু এটি গ্রহণ করার জন্য তাকে ফ্রান্সে ভ্রমণের অনুমতি দেওয়া হয়নি। এ বিষয়ে কান আয়োজকরা সেসময় তীব্র নিন্দা জানান।

বার্লিন ফিল্ম ফেস্টিভ্যালও গত সপ্তাহে রাসোলফ এবং আলেহামাদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ করেন। সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

চিত্রজগত/সিনেমা

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়