শুক্রবার, ৩১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

অ্যাম্বারকে বিয়ের প্রস্তাব সৌদি যুবকের

পৃথিবী এখন হাতের মুঠোয়। নেট–দুনিয়ার ফলে কখন যে কী ভাইরাল হয়ে যায়, তা বোঝা মুশকিল! ভাইরাল হয়ে নেট মাধ্যমে এখন ঘুরছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামের পোস্ট। যেখানে সৌদি আরবের এক যুবক বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছেন মার্কিন অভিনেত্রী অ্যাম্বার হার্ডকে। শুধু তা–ই নয়, তিনি নিজেকে জনি ডেপের চেয়ে অনেক ভালো পাত্র হিসেবে দাবি করেছেন।

কয়েক দিন আগেই মার্কিন মুলুকের চর্চার বিষয় ছিল জনি ডেপ আর অ্যাম্বার হার্ডের মামলা। আর অ্যাম্বার হার্ডের বিরুদ্ধে দায়ের করা মানহানির মামলায় জিতেছেন ‘পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ান’–খ্যাত জনি ডেপ। আদালতের নির্দেশে জনি ডেপকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে অ্যাম্বারের দিতে হচ্ছে ১৫ মিলিয়ন ডলার। যদিও অভিনেত্রীর আইনজীবী জানিয়েছেন, অ্যাম্বারের পক্ষে এই মুহূর্তে ১৫ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ দেওয়া সম্ভব নয়। এর মধ্যেই ভাইরাল হলো অভিনেত্রীকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে করা সৌদি নাগরিকের পোস্ট।

ইনস্টাগ্রামে মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়েছে বিয়ের প্রস্তাবের স্ক্রিনশট। পোস্টে লিখিত প্রস্তাবের পাশাপাশি হলিউড অভিনেত্রীর উদ্দেশে ভয়েস মেসেজও পোস্ট করেন ওই ব্যক্তি। আরবি ভাষায় ওই ব্যক্তি ভয়েস মেসেজে বলেছেন, ‘অ্যাম্বার, যখন তোমার জীবনের সব দরজা বন্ধ হয়ে গেছে, তখন আমি ছাড়া তোমাকে খেয়াল করার মতো কেউ নেই। আমি জানি, অনেকেই তোমাকে কটাক্ষ করছে, সেই কারণেই ঠিক করেছি আমি তোমাকে বিয়ে করব। তোমার জন্য ওই বুড়োর (জনি ডেপ) চেয়ে আমি অনেক ভালো পাত্র। এই খারাপ সময়ে আমি তোমার জীবনকে আনন্দে ভরিয়ে তুলব।’

ভালোবেসে ২০১৫ সালে ৩০ বছর বয়সের অ্যাম্বার বিয়ে করেছিলেন ৫২ বছরের জনি ডেপকে। মাত্র ১৫ মাস টিকেছিল তাঁদের বিয়ে। এরপর ২০১৮ সালে ওয়াশিংটন পোস্টে একটি উপসম্পাদকীয় লেখেন অ্যাম্বার হার্ড। সেখানে তিনি অভিযোগ করেন, জনি তাঁকে শারীরিক, মানসিক ও মৌখিকভাবে নির্যাতন করেছেন। অবশ্য ডেপ সেসব অভিযোগ অস্বীকার করে সাবেক স্ত্রীর নামে ৫০ মিলিয়ন ডলারের মানহানির মামলা করেন। ছয় সপ্তাহ ধরে এই মামলার শুনানি চলে ফেয়ারফ্যাক্স কাউন্টি সার্কিট কোর্টে। কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে চলে বিস্তর কাদা–ছোড়াছুড়িও। তবে শেষ হাসি হাসেন জনি ডেপ। ১ জুন মামলায় রায় দেন সাত সদস্যের জুরি।

চিত্রজগত/ভিন্ন খবর

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

এই সপ্তাহের পাঠকপ্রিয়